ভাইবোন নিহত হওয়ার ঘটনায় হাজারো মানুষের মানববন্ধন

Spread the love








কেরানীগঞ্জের কমপক্ষে ২০টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের কয়েক হাজার শিক্ষার্থী, অভিভাবক, শিক্ষক ও এলাকাবাসী মানববন্ধনে অংশ নিয়েছেন। ছবি: দীপু মালাকার

কেরানীগঞ্জের কমপক্ষে ২০টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের কয়েক হাজার শিক্ষার্থী, অভিভাবক, শিক্ষক ও এলাকাবাসী মানববন্ধনে অংশ নিয়েছেন। ছবি: দীপু মালাকারঢাকার দক্ষিণ কেরানীগঞ্জের রাজেন্দ্রপুর এলাকায় ট্রাকের চাপায় দুই ভাইবোনের নিহত হওয়ার ঘটনায় দোষী ট্রাকচালক ও তাঁর সহকারীর গ্রেপ্তার এবং নিরাপদ সড়কের দাবিতে মানববন্ধন করছেন হাজারো মানুষ। আজ বৃহস্পতিবার সকাল ১০টা থেকে রাজেন্দ্রপুর এলাকায় ঢাকা–মাওয়া মহাসড়কে এই মানববন্ধন কর্মসূচি পালিত হচ্ছে।

‘আফিফা ও আফসারের খুনির বিচার চাই’, ‘খুনি চালকের ফাঁসি চাই’ লেখা প্লাকার্ড বহন করে শিশুরা। ছবি: দীপু মালাকার‘আফিফা ও আফসারের খুনির বিচার চাই’, ‘খুনি চালকের ফাঁসি চাই’ লেখা প্লাকার্ড বহন করে শিশুরা। ছবি: দীপু মালাকারকেরানীগঞ্জের কমপক্ষে ২০টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের কয়েক হাজার শিক্ষার্থী, অভিভাবক, শিক্ষক ও এলাকাবাসী এই মানববন্ধনে অংশ নিয়েছেন। এ সময় তাঁরা চালক ও চালকের সহকারীর গ্রেপ্তার ও নিরাপদ সড়কের দাবি জানান। ‘আফিফা ও আফসারের খুনির বিচার চাই’, ‘খুনি চালকের ফাঁসি চাই’, ‘ঘাতকের ফাঁসি চাই’—লেখা প্লাকার্ড বহন করে শিক্ষার্থীরা।

দোষী ট্রাকচালক ও তাঁর সহকারীর গ্রেপ্তার এবং নিরাপদ সড়কের দাবিতে মানববন্ধনে অংশ নেয় শিক্ষার্থীরা। ছবি: দীপু মালাকার

দোষী ট্রাকচালক ও তাঁর সহকারীর গ্রেপ্তার এবং নিরাপদ সড়কের দাবিতে মানববন্ধনে অংশ নেয় শিক্ষার্থীরা। ছবি: দীপু মালাকারনিহত দুই শিশুর বাবা শামসুল আলম বলেন, ‘আমার মতো কারও বাবা যেন অকালে সন্তান না হারায়।’ তিনি সকাল আটটা থেকে রাত আটটা পর্যন্ত ঢাকা-মাওয়া মহাসড়কে ট্রাক চলাচল বন্ধের দাবি জানান। তিনি বলেন, ‘আমার দুই শিশু মৃত্যুর চার দিন অতিবাহিত হলেও পুলিশ ঘাতক ট্রাক ও হেলপারকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি।’ তিনি দোষী ব্যক্তিদের শাস্তির দাবি জানান।

আফসার আহমেদ ও আফিফা আক্তার। ছবি: সংগৃহীত

আফসার আহমেদ ও আফিফা আক্তার। ছবি: সংগৃহীতমানববন্ধনের কারণে ঢাকা-মাওয়া মহাসড়কে দুপাশে প্রায় দুই কিলোমিটার এলাকাজুড়ে যান চলাচল বন্ধ।

গত সোমবার ঢাকার দক্ষিণ কেরানীগঞ্জে বেলা ১১টার দিকে স্কুল থেকে বাড়ি ফেরার পথে ট্রাকের চাপায় মোটরসাইকেল আরোহী দুই ভাইবোন আফিফা আক্তার ও আফসার আহমেদ নিহত হয়। তারা কেরানীগঞ্জের কসমোপলিটন ল্যাবরেটরি স্কুল অ্যান্ড কলেজের শিক্ষার্থী ছিল। আফিফা পঞ্চম শ্রেণিতে, আফসার তৃতীয় শ্রেণিতে পড়ত।হাজারো মানুষ মানববন্ধনে অংশ নিয়েছেন। ছবি: দীপু মালাকার

হাজারো মানুষ মানববন্ধনে অংশ নিয়েছেন। ছবি: দীপু মালাকার

 

 
















Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *